অজানা আতংক (শেষ পর্ব)

0
সাঈদ মোঃ তানজিদ||

শেষ পর্ব:


আবীরের চোখের সামনে ঘুটঘুটে অন্ধকার। মনে দ্বিধা আর ভয়ানক কিছু ঘটে যাওয়ার আশঙ্কা। হাসি থেমেছে কিন্তু শুরু হয়েছে ফিসফিস শব্দ আর গোঙানীর আওয়াজ। কয়েকজন যেন তার ঠিক কাছেই ফিসফিস করে কথা বলছে। খানিকটা দূরে অসুস্থ কেউ যেন গোঙাচ্ছে। হঠাৎ হঠাৎ কিশোরী মেয়ের কান্নার শব্দও ভেসে আসছে। আবীর অসম্ভব ভয়ে মেঝেতে বসে পড়ল। কিসে যেন হাত লাগল অর। কে ওখানে? সাড়া নেই। হাত বাড়ালো অন্ধকারে আবীর। একজন মানুষ। এইতো হাত। বরফ শীতল ঠান্ডা! মৃত নাকি? মনে পড়ল আবীরের পকেটে মোবাইল আছে। বের করল, কিন্তু আলো জ্বালাতে ভয় করছে। কি দেখবে এখন সে?…

অবশেষে জ্বালালো আলো, ক্ষীণ আলো আরো ঔজ্জ্বল্যতা হারিয়েছে। পাশে ধরল সে মোবাইলের আলোটা। আবীর দেখা মাত্র ২ পা পিছিয়ে গেল। গুলিয়ে গেল ওর ভেতরটা। চোখ দিয়ে অনর্গল পানি পড়তে লাগল। ভয়ে তার গলা শুকিয়ে গেল। তার সামনে যে ফারিহা শুয়ে আছে। এ কি ফারিহা? না না, তার লাশ। অর্ধ খাওয়া, গলার কাছে ধারালো নখের আচড়, বিবর্ণ বস্ত্রহীন। নিচের দিকের কোন অস্তিত্ব নেই, দস্তাদস্তি হয়েছে বোঝা যাচ্ছে। বুকে, গালে, গলায় আচড়ের দাগ।এক পাশের বুকে ছিদ্র হয়ে আছে। দেখা যাচ্ছে হৃদয়টা।

এমন বীভৎসতা দেখে ভয় সরে গেল আবীরের। ক্রোধে উন্মত্ত হয়ে গেল আবীর। আর তার কিছুতেই কিছু আসে যায় না। এর শেষ দেখে ছাড়বে সে। উঠতে যাবে এমন সময় দেখল তার পাশেই বিশাল দুটো পা। স্বভয়ে উপরে চোখ তুলল। বিবর্ণ, বস্ত্রহীন দেহ। সরাসরি মুখে আলো ফেলল আবীর। দানবীয় একখানা মুখ দেখল আবীর। ঠোটের ফাক দিয়ে করাতের মত একরাশি দাত বের হয়ে এসেছে। রক্ত পড়ছে দাত,মুখ, গলা বেয়ে। চোখগুলো লাল, যেন জ্বলছে। দানবটা করাতের মত দাত মেলিয়ে হাসছে। একটু পরেই বিরাট হাত তুলল দানব। নেমে আসতে লাগল নিচে। লক্ষ্য আবীরের গলায়…

পরিশিষ্ট:
প্রাক্তন সেনেটরের বাড়িটি বন্ধ থাকবে মেনে নিতে পারছেন না সদ্য নির্বাচিত সেনেটর। তিনি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি এসে থাকবেন এখানেই। এতে করে ভালো পাবলিসিটি হবে, ভেতরে ভেতরে এও ভাবছেন সেনেটর সাহেব। যথারীতি সন্ধায় এসে পৌছুলেন অবিবাহিত সেনেটর একা। নিজেই ড্রাইভ করে এসেছেন। গাড়ি থেকে নামছেন এমন সময় সদর দরজা খুলে গেল। ভেতর থেকে একজন পুরুষ বেরিয়ে আসল। সুদর্শন, ও বেশ হাস্যজ্জ্বল। সেনেটর জানতে পারলেন উনার নাম আবীর। এখানকার কেয়ার টেকার! দুজন ভেতরে ঢুকলেন। দরজা আপনা আপনি লেগে গেল। এমন সময় বিদ্যুৎ চলে গেল। অমাবশ্যার রাতের নিকষ কালো রাত এগিয়ে চলল…..

Comments

comments