{{theTime}} |   Sun 21 Jan 2018

আপনার গৃহের রান্নাঘরকে রাখুন সবসময় ছিমছাম, গোছালো ও পরিষ্কার

প্রকাশঃ রবিবার, ১৫ অক্টোবর ২০১৭    ১৭:২৫
অনলাইন ডেস্ক নিউজ

গৃহের সাজানোর পরপরই যে ঘরকে পরিপাটি করে সাজানোর কথা আসে তা হচ্ছে রান্নাঘর। রান্নাঘর একজন গৃহিণীর সবচেয়ে কাছের জায়গা। রান্নাঘর যদি সবসময় গোছালো এবং পরিষ্কার না থাকে তবে গৃহকর্ত্রী তার রান্নাবান্নার কাজ করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করবেন না।

রান্নাঘরকে ছিমছাম ও পরিষ্কার রাখার উপায়-

১) রান্নাঘর সবচাইতে বেশী নোংরা হয় এঁটো থালাবাসনে কারণে। সিংকে কখনোই থালা বাসন জমতে দেবেন না। যখন যা হচ্ছে সাথে সাথে পরিষ্কার করে ফেলুন। একই সাথে সিংকটাও ধুয়ে রাখবেন প্রতিবার। এই একটি কাজেই দেখতে পাবেন আকাশ পাতাল পার্থক্য। না রান্নাঘর নোংরা হবে, না হবে বাজে গন্ধ।

২) রান্নাঘরে অবশ্যই ঢাকনা দেয়া ময়লার ঝুরি বা বালতি ব্যবহার করবেন। তবে সরাসরি বালতি বা ঝুড়িতে ময়লা ফেলবেন না। ভেতরে একটি পুরনো কাগজ বা প্লাস্টিকের প্যাকেট বিছিয়ে সেটার মাঝে ময়লা ফেলুন। এতে আপনার ময়লার ঝুরিও নোংরা হবে কম। আর রোজ ময়লার ঝুরির আশেপাশে একটু পোকা মারার স্প্রে ছিটিয়ে দিন। এতে ময়লার ঝুড়িতে পিঁপড়াও ধরবে না।

৩) বাজারে হরেক রকম মব কিনতে পাওয়া যায়। আপনার সুবিধা মত সাইজের একটি মব কিনে রাখুন। রান্নাঘরে পা দেয়া হলেই বেড়িয়ে যাওয়ার সময় মবটি দিয়ে হালকা করে মুছে ফেলুন। এই কাজে আপনার সময় লাগবে মাত্র ১ মিনিট। কিন্তু প্রত্যেকবার অল্প ময়লা হলেই যদি মব দিয়ে মুছে ফেলেন, তাহলে বেশি ময়লা হয়ার সমস্যাই তৈরি হবে না।

৪) কখনোই রান্নাঘরের মেঝেতে কুটোবাছা করতে বসে যাবেন না। বাড়িতে অনেক পুরনো খবরের কাগজ থাকে, যেগুলো আসলে একসময় ফেলেই দেয়া হয়। এই খবরের কাগজ বিছিয়ে নিয়ে কোটাবাছা করুন। সবজির খোসা হোক বা মাছ-মাংসের রক্ত ও উচ্ছিষ্ট অংশ, সবই এই খবরের কাগজের ওপর দিয়ে যাবে। কাজ শেষ হলে কাগজসহ উঠিয়ে ময়লার ঝুড়িতে ফেলে দিন। দেখলেন তো, মেঝে একটুও ময়লা হলো না। আপনিও মেঝে মোছার যন্ত্রণা থেকে বেঁচে গেলেন।

৫) রান্নাঘরে অন্যতম সমস্যা হচ্ছে চুলার আশেপাশে তেলের দাগ ও তেল চিটচিটে ভাব। গরম পানি ও সাবন দিয়ে খুব করে না ঘষলে এই দাগ উঠতে চায় না। তবে একে দূর করার বুদ্ধিও আছে। প্রত্যেকবার চুলার কাজ শেষ হলে চুলাটি একটি কাপড় বা টিস্যু দিয়ে মুছে ফেলুন। ভালো এক বোতল গ্লাস ক্লিনার বাফ্লোর ক্লিনার কিনে রাখুন। দিন শেষে একবার কাপড়ে বা টিস্যুতে ক্লিনার লাগিয়ে চুলা ও এর আশেপাশের সমস্ত জায়গা (দেয়াল সহ) মুছে ফেলুন। দেখবেন, আপনার চুলার ধার সর্বদাই থাকবে ঝকঝকে।

৬) বটি বাদ দিয়ে চপিং বোর্ড ও চাকু ব্যবহার করা অভ্যাস করুন। রান্নাঘর অনেকটাই কম ময়লা হবে।

৭) মাছ মাংস ইত্যাদি বাজার থেকে কুটে আনবেন। আপনার কষ্ট যেমন কমবে, তেমনই কমবে রান্নাঘর ময়লা হবার যন্ত্রণা।

৮) কখনো প্লাস্টিক বা কাপড়ের ব্যাগ রান্নাঘরে জমাবেন না। ব্যবহার শেষ হলে ফেলে দিন। একান্তই জমাতে হলে একটি ঢাকনা দেয়া পাত্রে বা মুখ আটকানো ব্যাগে জমিয়ে রাখুন।

৯) পেঁয়াজ বা রসুন ইত্যাদি যেসব খাবারের খোসা বাতাসে ওড়ে, সেগুলো কাটার আগে পানিয়ে ভিজিয়ে রাখুন। খোসা উড়ে ঘর নোংরা হবে না।

১০) রান্নাঘরে কখনোই বেশী জিনিস রাখবেন না। কিংবা যা হাতের কাছে পাবেন নিয়ে রান্নাঘরে গুঁজে দেবেন না। রান্নাঘরে যতটা সম্ভব কম জিনিস রাখুন। এতে কাজে যেমন সুবিধা হবে, তেমনই নোংরাও হবে কম।

add.jpg
add.jpg

সম্পাদক

কাজী এম আনিছুল ইসলাম

ভারপ্রাপ্ত প্রকাশক

মোঃ আব্দুল হামিদ

আমাদের সাথে থাকুন
সদ্য সংবাদ